হাডসন নদীতে পাওয়া গেছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম নারী বিচারকের লাশ 

যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম মুসলিম নারী বিচারক হিসেবে দায়িত্বপালনকারী এক নামকরা আইনজ্ঞকে নিউ ইয়র্কের হাডসন নদীতে মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে।

https://www.bdnow24.com/category/আন্তর্জাতিক/
ম্যানহাটনের পশ্চিম পাশে নদীর কিনারে এক ব্যক্তিকে ভাসমান অবস্থায় দেখা গেছে এমন খবর পেয়ে বুধবার দুপুর ১টা ৪৫ মিনিটের দিকে তাকে উদ্ধার করে পুলিশ, জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স, দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস।


নদী থেকে তার লাশ উদ্ধার করার পর চিকিৎসাকর্মীরা ঘটনাস্থলেই তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

৬৫ বছর বয়সী শেইলা আব্দুস সালাম নিউ ইয়র্ক রাজ্যের সর্বোচ্চ আদালতের একজন বিচারক ছিলেন। তার লাশ শনাক্ত করেছেন তার স্বামী।

তার শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়নি এবং লাশের পুরো শরীর কাপড়ে ঢাকা ছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ।

তার মৃত্যুর কারণ ময়নাতদন্তের পর জানা যাবে বলে জানিয়েছেন পুলিশের ওই মুখপাত্র।

২০১৩ সাল থেকে তিনি নিউ ইয়র্ক রাজ্যের আপিল আদালতের সাত জন বিচারকের একজন ছিলেন। এর আগে তিনি চার বছর রাজ্যটির সর্বোচ্চ আদালতের প্রথম আপিল বিভাগের সহযোগী বিচারপতি ছিলেন। তারও আগে ১৫ বছর ধরে ম্যানহাটনে তিনি রাজ্যটির সর্বোচ্চ আদালতের একজন বিচারপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

এক সময় তিনি নিউ ইয়র্ক শহরের আইন বিভাগের উকিল ছিলেন। আফ্রিকান-আমেরিকান শেইলা আব্দুস সালাম যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডি.সি.-তে জন্মগ্রহণ করেছিলেন।

অজ্ঞাত সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে নিউ ইয়র্ক পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বুধবার ভোরে তিনি তার নিউ ইয়র্ক শহরের হার্লেমের বাসা থেকে নিখোঁজ হন বলে অভিযোগ করা হয়। তার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তা সফল হয়নি।

সূত্র : বিডিনিউজ২৪

Be the first to comment on "হাডসন নদীতে পাওয়া গেছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম নারী বিচারকের লাশ "

Leave a Reply