স্বাস্থকর স্ন্যাকসও হতে পারে স্বাস্থ্যহানীর কারণ

কাণ্ডজ্ঞানহীনের মতো পেট ভরে খেলে  স্বাস্থকর স্ন্যাকসও হতে পারে স্বাস্থ্যহানীর কারণ।

খাদ্য ও পুষ্টিবিষয়ক এক ওয়েবসাইট জানিয়েছে কীভাবে এই স্ন্যাকস খাওয়ার লাগাম টানা যেতে পারে।


বাদাম: সব ধরনের বাদামই স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। হেজেলনাট, কাঠবাদাম, কাজুবাদাম, পেস্তাবাদাম, আখরোট ইত্যাদি খেতে হবে কাঁচা কিংবা বালুতে ভাজা অবস্থায়। বাদামে প্রচুর আঁশ ও আমিষ থাকে যা রক্তে শর্করা ও লিপিড’য়ের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখে। তবে বাদামে প্রচুর ক্যাররিও থাকে, তাই খাওয়ার সময় পরিমাণ সম্পর্কে সচেতন থাকতে হবে।
সাগুদানা: এটিই একমাত্র শষ্যজাতীয় খাবার যাতে ৯ ধরনের এসেন্সিয়াল অ্যামিনো অ্যাসিড থাকে, যা সাগুদানাকে বানায় একটি পরিপূর্ণ আমিষ। এছাড়াও এতে আঁশ ও ওমেগা-থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে প্রচুর, যা হৃদযন্ত্র সুস্থ ও ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে উপকারি। তবে প্রতি কাপ সাগুদানায় থাকে প্রায় ২২২ ক্যালরি, তাই অতিরিক্ত খাওয়া পেটের জন্য বিপদের কারণ হতে পারে।
আম: মৌসুমি এই ফল- আঁশ, ভিটামিন এ, ভিটামিন বি সিক্স এবং ভিটামিন সি’তে ভরপুর, যা রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে এবং হজমে সহায়ক। কপার, পটাশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম এবং হৃদযন্ত্রের জন্য উপকারী খনিজ উপাদানও প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায় ফলটিতে। তবে মাঝারি আকারের একটি আমে প্রায় ১৩০ ক্যালরি ও ৩১ গ্রাম চিনি থাকে। তাই যখন আম খাবেন তখন গ্লাইসেমিক ও কার্বোহাইড্রেটজাতীয় খাবার কম খেয়ে ভারসাম্য বজায় রাখতে হবে।

Be the first to comment on "স্বাস্থকর স্ন্যাকসও হতে পারে স্বাস্থ্যহানীর কারণ"

Leave a Reply