রিভিউ (মুভি) : “Get out”

শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে জামাই আদর খেতে কার না ভালো
লাগে? তাই সব ছেলেরই জামাই হয়ে মাছের মুড়ো খাবার
ইচ্ছা থাকে মনে মনে। কিন্তু জামাই কালো হলে? সেই
জবাবই দিয়েছে এই বছরের এখন পর্যন্ত সেরা হরর/ সোশাল
থ্রিলার মুভি Get out
ফটোগ্রাফার ক্রিস তার সাদা চামড়ার হাসিখুশী
গার্লফ্রেন্ড রোজের সাথে তার বাবা-মায়ের সাথে
উইকেন্ডে ছুটি কাটাতে যাচ্ছে।তবে রোজের বাবা-মা
কিন্তু ক্রিসের গায়ের রঙের কথা জানেনা। নিউরোসার্জন
বাবা আর হিপনোথেরাপিস্ট মা অবশ্য ক্রিসকে সাদরে বরণ
করে নেয়। মজার ব্যাপার হল, রোজের আত্মীয়-স্বজনেরা
ক্রিসকে খুশি করার জন্য নিজেদেরকে ওবামা আর টাইগার
উডসের ফ্যান দাবি করে,কিন্তু এর মাধ্যমেই নিজেদেরকে
চূড়ান্ত রেসিস্ট প্রমাণিত করে। এদিকে বাড়ির দুই ব্ল্যাক
কাজের লোক আর এক ব্ল্যাক গেস্টের আচরণ ক্রিসের
কাছে অস্বাভাবিক মনে হয়।
মুভির উদ্দেশ্য অবশ্য Moonlight এর মত ব্ল্যাক্সপ্ল্যটেশন না।
পুরো মুভিতে সূক্ষ্ম সূক্ষ্ম হরর মেটাফর হরর মুভি লাভারদের
জন্য একটা ট্রিট। সাউন্ডট্র্যাক ওয়েস ক্র্যাভেনের কথা
মনে করিয়ে দিলো। মুভির শেষ তৃতীয়াংশে গিয়ে টুইস্ট
দিলেও পুরো মুভিতে টানটান অস্বস্তি পিছু ছাড়েনা
(অনেকটা গত বছরের The invitation এর মত। যেন সবকিছুই বেশি
পারফেক্ট)। মুভির মেইন ভিলেন হলো ইগো প্রবলেম।
কমেডিয়ান জর্ডান পিলের পরিচালনায় এই মুভি মুক্তির
পরেই বক্স অফিসে সাড়া ফেলে দিয়েছে। শুধু তাই না,
রোটেন টম্যাটোসেও ৯৯% রেটিং! হতাশ হব যদি বড় কোন
অ্যাওয়ার্ড শোতে এমনকি নমিনেশনও না পায়, কারণ
ডাইরেক্টিং আর অ্যাক্টিং ছিল নিখুঁত, বিশেষ করে
ক্রিসের ডায়লগবিহীন কিছু এক্সপ্রেশন ছিলো অসাধারণ।

Be the first to comment on "রিভিউ (মুভি) : “Get out”"

Leave a Reply