রিভিউ (মুভি) : “Exorcist: The Beginning”

১৯৭৩ সালের সেই “দা এক্সরসিস্ট” মুভির কথা মনে আছে? হ্যাঁ, এটি
সেই মুভিরই প্রিকুয়েল। ২০০৪ সালে মুক্তি পাওয়া প্রায় ৫০ মিলিয়ন ডলার
ব্যয়ে নির্মিত এই মুভিতে “দা এক্সরসিস্ট” মুভিতে দেখানো সেই
ইভিলের জন্ম দেখানো হয়েছে। এটি এক্সরসিস্ট ফ্রাঞ্চাইজের
চতুর্থ মুভি। মুভিটিতে এডভেঞ্চার এর উপস্থিতি এতোটাই বেশি যে
খুবই অল্প সময়ের মধ্যে আপনি এই মুভিটির কাহিনীর ভেতর ঢুকে
যাবেন। মুভিটি ডার্ক টোনে বানানো। মুভিটির প্লট থেকে শুরু
করে এর আবহ এবং কাহিনী বিন্যাসে যথেষ্ট আঁধারের উপস্থিতি রাখা
রয়েছে। মুভিটির অন্যতম আকর্ষণীয় দিক হচ্ছে এর পটভূমি।
অন্যান্য হরর মুভির পটভূমির তুলনায় এর পটভূমি বেশ বিশাল। মুভিটিতে
খুবই স্বল্প সময়ের জন্য বেশ কিছু যুদ্ধের দৃশ্য দেখানো
হয়েছে যা দেখলে আপনার গায়ের লোম খাঁড়া হতে বাধ্য।
মুভিটিতে বেশ কয়েকটি সময়ের পটভূমি দেখানো হয়েছে। আর
এর মূল কাহিনী আবর্তিত হয়েছে দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের পর
থেকে।
ছবিটির কাহিনী আবর্তিত হয় মেরিন নামক একজন প্রিস্ট এবং
আরকিওলজিস্টকে নিয়ে যে কিনা কেনিয়াতে একটি আরকিওলজি খনন
সাইটে যায়। খননের এক পর্যায়ে আবিষ্কৃত হয় যে এটি একটি
প্রাচীন চার্চ এবং এটি এতোটাই প্রাচীন যে আফ্রিকা রিজিওনে
ক্রিসচিয়ানিটি আসার বেশ আগেই এই চার্চ এখানে স্থাপন করা
হয়েছিলো। মূল ঘটনা ঘটতে শুরু করে তখনই যখন কিনা চার্চটি
আবিষ্কৃত হবার পর থেকে বেশ কিছু অশুভ ঘটনা ঘটতে থাকে ঐ
অঞ্চল জুড়ে। আর এভাবেই এগিয়ে যায় মুভিটির কাহিনী।

Be the first to comment on "রিভিউ (মুভি) : “Exorcist: The Beginning”"

Leave a Reply