রিভিউ (মুভি) : As Above So Below

আপনি যদি ফাউন্ড-ফুটেজ স্টাইলে নির্মিত হরর মুভি দেখতে পছন্দ
করেন তাহলে এই মুভিটি হবে ঝড়বৃষ্টির রাতে দেখার জন্য আপনার
জন্য পারফেক্ট চয়েস। মুভিটি নির্মিত হয়েছে ইউনিভার্সাল পিকচার্স
এর ব্যানারে। বুঝতেই পারছেন, যেমন তেমন মুভি না এটি। মুভিটিতে
ফাউন্ড-ফুটেজ স্টাইলে এক ভয়ানক আবহ সৃষ্টি করা হয়েছে। আমি
ব্যাক্তিগতভাবে এই মুভিটি দেখতে যেয়ে ভালো মাত্রায় ভয়
পেয়েছিলাম। তার উপর মুভিটির কাহিনী আবর্তিত হয়েছে প্যারিসের
বিখ্যাত ক্যাটাকুম্বকে কেন্দ্র করে। মুভিটির বেশ কিছু দৃশ্যে এমন
কিছু স্পেশাল ইফেক্ট ব্যবহার করা হয়েছে যা দেখলে অনেকটা
বিভ্রমের সৃষ্টি হয়। মুভিটি দেখার সময় আপনার স্নায়ুর উপর প্রচণ্ড চাপ
সৃষ্টি হতে পারে। আর এটিই হচ্ছে এই মুভিটি দেখার প্রধান আকর্ষণ।
মুভিটির বেশ কিছু জায়গায় “জাম্প স্কেয়ার” টেকনিক ব্যবহার করা
হয়েছে যা আপনাকে নিয়ে যাবে ভয়ের অন্য এক জগতে। মুভিটির
বেশ কিছু দৃশ্য আপনাকে কোনটা বাস্তব আর কোনটা পরাবাস্তব
সেই নিয়ে দ্বিধায় ফেলে দিতে পারে। বুঝতেই পারছেন মুভিটির
পরিচালক মুভিটিতে দক্ষতার সাথে বেশ কিছু সৃজনশীলতা যোগ
করেছেন। মুভিটির বেস্ট পার্ট হচ্ছে এর ব্যাকগ্রাউন্ড স্কোর।
জাম্প স্কেয়ার এর পাশাপাশি সাধারণ দৃশ্যগুলোতেও আপনার
মনোযোগ ধরে রাখতে মুভিটির ব্যাকগ্রাউন্ড স্কোর বেশ
ভালো প্রভাবক হিসেবে কাজ করবে।
মুভিটির কাহিনী এগিয়েছে একদল ডকুমেন্টারী ক্রুদের কেন্দ্র
করে যারা কিনা একটি বিশেষ উদ্দেশ্যে প্যারিসের ক্যাটাকুম্ব এর
মধ্যে বেআইনিভাবে প্রবেশ করে। কিন্তু কিছুদূর সেই অভিশপ্ত
জায়গায় অগ্রসর হবার পর তারা এমন কিছু ঘটনার সম্মুখীন হয় যা তাদের
পর্যায়ক্রমে ভেতর থেকে ভেঙ্গেচুরে দিতে থাকে।
সেখানে তারা এমন কিছু এনটিটির অস্তিত্ব অনুভব করতে পারে যা
এতোদিন শুধুমাত্র তারা বিভিন্ন মিথিকাল গল্পেই দেখে আসছিলো।
সেই সাথে শুরু হয় আরো ভয়ানক কিছু অনুভুতি যা থেকে তারা
বুঝতে পারে যে তারা ঠিক পৃথিবীতে নয়, তারা চলে এসেছে
তাদের নিজেদেরই সৃষ্টি করা ভয়ের অন্য এক জগতে। যেখান
থেকে বের হবার রাস্তা শুধু একটাই। আর সেটি হচ্ছে, পাতাল। মুভিটির
ট্যাগলাইন দেখলেই আপনি আমার এই কথাটির যথার্থতা বুঝতে
পারবেন।

Be the first to comment on "রিভিউ (মুভি) : As Above So Below"

Leave a Reply