মেয়ের প্রেমিককে আটকে রেখে মুক্তিপণ নিল প্রেমিকার বাবা!

মোঃ রাকিব আল রিয়াদ, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ
ঠাকুরগাঁও বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায় নিজের মেয়ের প্রেমিককে একদিন একরাত আটকে রেখে মুক্তিপণ নিয়ে ছেড়ে দিয়েছে প্রেমিকার বাবা।

ঠাকুরগাঁও বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার বড়বাড়ী ইউনিয়নের গোয়ালকারী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মুক্তিপণ প্রদানকারী প্রেমিকের নাম রিমন (১৭)। সে ঠাকুরগাঁও বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার লাহিড়ী বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মামরুল ইসলামের ছেলে।

রিমন এইচএসসি পাশ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তির চেষ্টা করছেন। প্রেমিকার নাম শোভা আক্তার (১৪)। সে ঠাকুরগাঁও বালিয়াডাঙ্গী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী ও গোয়ালকারী গ্রামের গিয়াস উদ্দীনের মেয়ে।

মেয়ের বাবা গিয়াস উদ্দীন জানায়, গত শুক্রবার রাতে রিমন বাড়ির প্রাচীর টপকে তার মেয়ের সাথে দেখা করতে আসলে আমরা তাকে ধরে ঘরে তালাবদ্ধ রাখি এবং রিমনের পরিবারের লোকজনকে জানায়।

পরদিন সকালে বিয়ষটির সমঝোতার জন্য রিমনের পরিবারের কেউ না আসলে শনিবার রাত ১০টা পর্যন্ত রিমন প্রেমিকার বাড়িতে তালাবন্ধ অবস্থায় ছিল।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, উভয় পক্ষকে ডেকে বিষয়টি মীমাংসা করে দেওয়া হয়েছে।

ছেলের বাবা মামরুল বলেন, আমার ছেলে রিমন ওদের বাড়িতে বেড়াতে গেলে তারা আটক করে মুক্তিপণ দাবী করে। আমি সম্মানের কথা ভেবে স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে মোটা অংকের মুক্তিপণ দিয়ে আমার ছেলে রিমনকে শনিবার গভীর রাতে ছাড়িয়ে নেয়।

প্রেমিক রিমন জানায়,গত শুক্রবার বিকাল ৪টায় শোভা আমাকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তাদের বাড়িতে আসতে বলে।

তবে স্থানীয় লোকজন বলছে, রিমন ও শোভার মাঝে দীর্ঘদিন ধরে প্রেম-ভালবাসার সম্পর্ক চলে আসছিল। এর আগেও এ সম্পর্ক নিয়ে বিভিন্ন ঘটনা ঘটেছে।

ঠাকুরগাঁও বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার বড়বাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আকরা আলী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, দুই পরিবারের লোকজন এবং ছেলের এলাকার ধনতলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সমর কুমার চ্যাটার্জী নুপুর বিষয়টি মীমাংসা করেছে বলে আমাকে জানিয়েছে।

Be the first to comment on "মেয়ের প্রেমিককে আটকে রেখে মুক্তিপণ নিল প্রেমিকার বাবা!"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*