মানুষ মানুষের জন্য

মাস দুই আগে কাউকে কিছু না বলে নিরুদ্দেশ হন স্বামী শহিদুল ইসলাম (৪০)। সেই থেকে তাঁর কোনো খোঁজ নেননি শহিদুল।বরগুনার বেতাগী উপজেলার বুড়া মজুমদার গ্রামের হতদরিদ্র গৃহবধূ মাকসুদা বেগমের কাহিনী এটি (৩৫)। manobota

দরিদ্র পরিবারের অভাবী সংসার মাকসুদার। দীঘদিন ধরে অ্যানিমিয়া (রক্তশূন্যতা) রোগে ভুগছেন। তার ওপর এক মাস আগে একটি মেয়ের জন্ম দেন তিনি। খাদিজা নামে তাঁর ১৩ বছরের আরেকটি মেয়ে রয়েছে।

এদিকে রক্তশূন্যতা চরমে পৌঁছালে দিন দিন অসুস্থ হয়ে পড়েন মাকসুদা। এ সময় স্থানীয় উন্নয়ন সংগঠন জাগো নারীর রি-কল প্রকল্পের উদ্যোগে মাকসুদাকে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, মাকসুদার শরীরে রক্তের হিমোগ্লোবিন আশঙ্কাজনক হারে কমে যাওয়ায় জরুরি ভিত্তিতে ন্যূনতম পাঁচ ব্যাগ রক্ত না দিলে মাকসুদার জীবন সংশয় রয়েছে। পুলিশ লাইভ ব্লাড ব্যাংকের একজন সদস্য বামনা থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) কামাল উদ্দিন প্রথম দিনেই মাকসুদাকে এক ব্যাগ রক্ত দিয়ে যান। দ্বিতীয় দিনে রক্ত দেন মেহেদী হাসান নামের আরেক পুলিশ কর্মকর্তা।

Be the first to comment on "মানুষ মানুষের জন্য"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*