বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার ভেঙ্গে দোকানঘড় নির্মানের অভিযোগ

মোঃ রাকিব আল রিয়াদ, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার শুখানপুখুরি ইউনিয়নের জাঠিভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার ভেঙ্গে দোকানঘড় নির্মানের অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে তিব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

এ বিষয়ে স্থানীয়রা জানান, ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার শুখানপুখুরি ইউনিয়নের জাঠিভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের আহবায়ক কমিটির সভাপতি ক্ষমতাশীল দলের নেতা হওয়ায় জাঠিভাঙ্গা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে যোগশাজস করে কিছুদিন আগে টেন্ডার ছাড়াই প্রতিষ্ঠানের প্রায় ২০-২৫ টি গাছ কর্তন করেন।

পরে কৌশলে বিদ্যালয়ের প্রাচীরের ভেতর দিয়ে প্রায় ২০টি দোকানঘর নির্মানে কাজ শুরু করে।

হঠাৎ শনিবার সকালে বিদ্যালয়ে স্থাপিত শহীদ মিনার ও প্রাচীর ভেঙ্গে বাহির পাশে ওইসব দোকানের কাজ করতে গেলে স্থানীয়দের তোপের মুখে পরে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

এ নিয়ে স্থানীয় লোকজনের সাথে স্কুল কমিটি ও প্রধান শিক্ষকের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়।

এর পরে স্থানীয় লোকজন ও অভিভাবক সদস্যরা মৌখিকভাবে সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তাকে বিষয়টি অবগত করলেও কোন ব্যবস্থা নেয়নি।
এ নিয়ে ওই এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

স্কুলের অভিভাবকের মধ্যে অনেকে জানান, আমরা ভাবতে পারছি না পুরোনো একটি শহীদ মিনার ভেঙ্গে কি করে দোকানঘর নির্মান করেন।

শধু তাই নয় স্কুলের বেশকিছু গাছ কর্তন করা হয়। সেই টাকা প্রতিষ্ঠানে জমা হয়েছে কিনা সন্দেহ রয়েছে। আমরা এর প্রতিবাদ জানাই। আমরা চাই সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নিবেন।

এ বিষয়ে জাঠিভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের আহবায়ক কমিটির সভাপতি সুধীর চন্দ্র জানান, বিদ্যালয়ের উন্নয়নের জন্যই দোকানঘর নির্মান করা হচ্ছে। তবে তিনি শহীদ মিনারটি ভাঙ্গার বিষয়টি এড়িয়ে যান।
আর ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনিসুর রহমানের সাখে যোগাযোগ করলে পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার আসলাম মোল্লা জানান, আমি বিষয়টি শুনেছি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বিস্তারিত জানা যাবে। আমি বিষয়টি দেখবো।

Be the first to comment on "বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার ভেঙ্গে দোকানঘড় নির্মানের অভিযোগ"

Leave a Reply