পোশাকের কারণে নিষিদ্ধ হলেন দাবাড়ুঁ

https://www.bdnow24.com/category/খেলাধুলা/

পোশাক ছোট বলে ১২ বছরের এক চ্যাম্পিয়ন দাবাড়ুকে টুর্নামেন্ট থেকে নাম তুলে নিতে বাধ্য করলেন আয়োজকরা! গত মাসে ঘটনাটি ঘটে মালয়েশিয়ায়। মালয়েশিয়ার পুত্রজয়াতে ন্যাশনাল স্কলাস্টিক চেস চ্যাম্পিয়নশিপের আয়োজন করা হয়েছিল। সেই টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছিলেন এমএসএস কুয়ালা লামপুর জেলার এক মেয়ে দাবাড়ু। অভিযোগ, খেলার দ্বিতীয় রাউন্ডেই টুর্নামেন্টের ডিরেক্টর প্রশ্ন তোলেন মেয়েটির পোশাক নিয়ে। মেয়েটি ওই দিন হাঁটু সমান একটি স্কার্ট পরে এসেছিল। ডিরেক্টরের মনে হয়েছে, এই স্কার্টটি নাকি ‘সিডাক্টিভ’। এ ধরনের পোশাক টুর্নামেন্টে কোনও ভাবেই মেনে নেওয়া হবে না।মেয়েটির কোচ কৌশল খান্ডারের অভিযোগ, পোশাক নিয়ে প্রশ্ন তুলে তাঁকে ব্যক্তিগত ভাবে ফোন করেন টুর্নামেন্টের ডিরেক্টর। খান্ডার জানান, ডিরেক্টরের এমন ফতোয়ায় রীতিমতো অবাক তাঁরা। প্রশ্ন তোলেন, এ ধরনের ফতোয়ার যৌক্তিকতা নিয়ে। গোটা বিষয়টি খান্ডার ফেসবুকেও পোস্ট করেন। ম্যাচ থেকে এমন ভাবে নাম তুলে নিতে হবে, তা-ও আবার পোশাকের অজুহাতে! এটা কোনও ভাবেই মেনে নিতে পারেনি ওই দাবাড়ু। ঘটনার পর থেকে সে রীতিমতো অস্বস্তিতে বলে জানিয়েছে তার কোচ। খান্ডার বলেন, প্রায় দুই দশক হয়ে গেল মালয়েশিয়ায় খেলছি, এমন ঘটনা আগে কখনও কোনও টুর্নামেন্টে হয়েছে বলে শুনিনি। সত্যিই আশ্চর্য হচ্ছি! আয়োজকরা মেয়েটিকে এক জোড়া স্ল্যাক্স কিনে পরের দিন পরে টুর্নামেন্টে আসতে বলেছিল।খান্ডারের অভিযোগ, কিন্তু যে সময় তাঁদের এ কথা বলা হয়, তখন রাত ১০টা বেজে গিয়েছে। দোকানপাট তত ক্ষণে সব বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। এ দিকে, পরের দিন সকাল ৯টার মধ্যে খেলায় অংশ নিতে হত মেয়েটিকে। ফলে স্ল্যাক্স কিনে যথা সময়ে সেখানে পৌঁছনো মোটেই সম্ভব ছিল না। তাই এক প্রকার বাধ্য হয়েই টুর্নামেন্ট থেকে নাম তুলে নিতে হয়। মালয়েশিয়ার চেস ফেডারেশন বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে। ফেডারেশনের এক মুখপাত্র জানান, মেয়েটির মায়ের বক্তব্যের সঙ্গে কোচের বয়ানে অসঙ্গতি রয়েছে। টুর্নামেন্টের ডিরেক্টর অবশ্য এই অভিযোগ নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি।​

Be the first to comment on "পোশাকের কারণে নিষিদ্ধ হলেন দাবাড়ুঁ"

Leave a Reply