পুরুষাঙ্গকে সাপ ভেবে ভুল!


হাসপাতালের বিছানায় মৃত্যুর সঙ্গে যুদ্ধ করছেন স্বামী। তার  পুরুষাঙ্গ ক্ষত-বিক্ষত। অবাক করা ব্যাপার হলো, এ জন্য দায়ী তার স্ত্রী। আরেকটু খুলে বললে স্ত্রীর সন্দেহবাতিক মন। যদিও অভিযুক্ত স্ত্রী এখন আর তা স্বীকার করছেন না। তিনি বলছেন- ইট ওয়াজ এ গ্রেট মিসটেক!
স্বামীর পুরুষাঙ্গকে তিনি সাপ ভেবে ভুল করেছেন। এরপর একবার দুইবার নয়, সেই সাপ হত্যা করতে তিনি ১৩ বার ছুরি দিয়ে আঘাত করেছেন। আর তাতেই স্বামীর প্রাণ যায় যায় অবস্থা।
স্ত্রীর দ্বারা এভাবে আক্রান্ত হয়ে স্বামী মাইকেল রজার্স জরুরি সাহায্যের জন্য ৯১১ নম্বরে কল করেন। তিনি জানান, পকেট ছুরি দিয়ে তার স্ত্রী তাকে শারীরিক নির্যাতন করেছেন। অন্যদিকে তার স্ত্রী ৪২ বছর বয়সি নিকোল রজার্সের ভাষ্য- বড় ধরনের ভুল থেকেই দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। তিনি ভেবেছিলেন ওটা সাপ।
তবে মাইকেল রজার্স জানিয়েছেন, তার স্ত্রী মিথ্যা বলছেন। সন্দেহপ্রবণ হয়েই সে এমন করেছে। তার স্ত্রীর সন্দেহ, মাইকেল তার প্রতিবেশী মিস. সুজির সঙ্গে রাত কাটিয়েছেন। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করে রজার্স দাবি করেছেন, তার স্ত্রী পাগল আর সন্দেহবাতিকগ্রস্ত।
স্বামীর এমন অভিযোগের পর নিকোলকে জেলে প্রেরণ করা হয়েছে। এদিকে চিকিৎসকরা বলছেন, অনেগুলো ক্ষতের কারণে মাইকেলের পুরুষাঙ্গ শরীর থেকে বাদ দেয়া হবে।

Be the first to comment on "পুরুষাঙ্গকে সাপ ভেবে ভুল!"

Leave a Reply