পদ্মা  সেতু দুর্নীতি মামলায় সঠিক অবস্থানে ছিলো দুদক: মোস্তফা

​বাংলাদেশের অন্যতম ব্যয়বহুল প্রকল্প পদ্মা সেতু নির্মাণে আন্তর্জাতিক সংস্থা গুলোর অর্থায়নের চুক্তি থাকলেও দুর্নীতির অভিযোগে বিশ্বব্যাংক তাদের অর্থায়ন বাতিল করে দেয়।  তার পর বিশ্ব ব্যাংককে অনুসরণ করে জাইকা এবং এডিবিও ঋণ বরাদ্দ বাতিল করে দেয়।  

https://www.bdnow24.com/category/বাংলাদেশ/
এই প্রকল্পের দুর্নীতি অভিযোগের মামলা চলছিলো কানাডার একটি আদালতে।  মামলার প্রাথমিক বিষয়গুলো পর্যবেক্ষণ করার পর আদালত মামলাটি বাতিল করে দেয়।  


এই মামলার রায় নিয়ে দুর্নীতি দমক কমিশনের (দুদক) কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন দুদক সচিব আবু মো. মোস্তফা কামাল। 

তিনি বলেন যে,  পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগ বিষয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) তদন্ত সঠিক ছিল। পদ্মা সেতু নিয়ে দুদকের তদন্ত নিয়ে যারা সমালোচনা করেছিলেন তাঁরা না জেনেই করেছেন।

পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের মামলার রায়ে কোনো দুর্নীতির প্রমাণ পাওয়া যায়নি বলে শুক্রবার রায় দেন কানাডার টরন্টোর এক আদালত। তাই কানাডার মন্ট্রিলভিত্তিক প্রকৌশল প্রতিষ্ঠান এসএনসি-লাভালিনের সাবেক তিন কর্মকর্তাকে অভিযোগ থেকে খালাস দেওয়া হয়।

অন্যদিকে গত বছরের গত বছরের ১৩ মার্চ সাবেক চেয়ারম্যান মো. বদিউজ্জামান বলেছিলেন, ২০১২ সালে বিশ্বব্যাংকের চাপের মুখেই কোনো দালিলিক তথ্য-প্রমাণ ছাড়া পদ্মা সেতু দুর্নীতির অভিযোগে মামলা করেছিল তাঁর সংস্থা। তাঁর আমলেই মামলাটি হয়েছিল। পরে তদন্ত শেষে আসামিদের অব্যাহতি দেওয়া হয়।পদ্মা সেতু দুর্নীতির অভিযোগে আমরা (দুদক) যে এজাহারটি করেছি তাতে মামলা করার মতো কোনো উপাদান ছিল না। আসলে এটা ঠিক হয়নি।

Be the first to comment on "পদ্মা  সেতু দুর্নীতি মামলায় সঠিক অবস্থানে ছিলো দুদক: মোস্তফা"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*