জেনে রাখুন খাবার ভালো রাখতে কিছু প্রয়োজনীয় টিপস

সময়ের অভাবে এখন প্রতিদিন বাজারে যাওয়া সম্ভব নয়। তাই একসঙ্গে দু-তিন দিনের বাজার করতে হয়।

বাড়িতে অতিরিক্ত সবজি বা ফল মজুত থাকলে রান্না করতে সুবিধা হয়, তা তো আমরা সবাই জানি। তবে সঠিক সময়ে সেগুলো সদ্ব্যবহার না করলে আনাজপাতিতে পচন ধরে থাকে। আবার রান্নার পর যদি বেশ কিছু খাবার না খাওয়া হয়ে থাকে, তাহলেও কিন্তু এই একই সমস্যা হয়। তাই প্রয়োজন সবজিপাতি ও রান্না করা খাবারের যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণ। জেনে নাও খাবার ভালো রাখার কিছু উপায়।

কী করবে

ফল-সবজি বাজার থেকে আনার পর প্রথমে পরিষ্কার করে ধুয়ে নাও। তারপর জিপলক প্যাকে ভরে করে ফ্রিজে স্টোর করো, অনেক দিন তাজা থাকবে। লেটুস, পালংশাক পরিষ্কার করে পলিথিনে ভরে ফ্রিজে স্টোর করো। এতে সবজির আর্দ্রতা ও পুষ্টিগুণ অনেক দিন ভালো থাকবে। সপ্তাহ খানেক ফ্রেশ থাকবে। কাঁচা মরিচ বেশি কিনলে প্রায়ই নষ্ট হয়ে যায়। কাঁচা মরিচ বাজার থেকে বেশি কিনলে ধুয়ে শুকনো করে মুছে নাও। তারপর বোঁটা ছাড়িয়ে নাও। কাচের শিশিতে স্টোর করতে পারো। অথবা রাখতে পারো ফ্রিজে। আবার কাঁচা মরিচ মাঝখান থেকে সামান্য চিরে এতে হলুদ-লবণ মাখিয়ে রোদে শুকিয়ে নিয়ে স্টোর করো। ভালো থাকবে। কারিপাতা এমনি রেখে দিলে শুকিয়ে যায়, স্বাদও নষ্ট হয়ে যায়। তাই কারিপাতা ধুয়ে নাও। তারপর সামান্য তেলে মুচমুচে করে ভেজে গুঁড়ো করে এয়ারটাইট বোতলে ভরে রাখো। বেশ কয়েক দিন তাজা থাকবে। মরিচগুঁড়া, জিরাগুঁড়ো, ধনেগুঁড়া শুকনো খোলায় ভেজে এয়ারটাইট কনটেইনারে স্টোর করো। বেশি দিন তাজা থাকবে। পনির কিছুটা ব্যবহারের পর বাকিটা ব্লটিং পেপারে মুড়ে ফ্রিজে রাখো। পনির নষ্ট হবে না, আবার নরমও থাকবে।  নারকেলের মালা একসঙ্গে পুরোটা লাগে না। অর্ধেক মালা ফ্রিজে রাখার সময় সামান্য লবণ মাখিয়ে রাখো। বেশ কিছুদিন ফ্রেশ থাকবে। আদা-রসুনবাটা বেশি হয়ে গেলে সামান্য লবণ-তেল মিশিয়ে ফ্রিজে স্টোর করো। বেশ কিছুদিন ধরে ব্যবহার করতে পারবে। টমেটো পিউরি বেশি হলে আইস ট্রেতে রেখে জমিয়ে নাও। তারপর প্লাস্টিকের কৌটায় ভরে ফ্রিজে রাখো। জুস বা স্যুপ তৈরির সময় ব্যবহার করতে পারবে। এক টুকরো সৈন্ধব লবণ ঘিয়ের শিশির মধ্যে রেখে দাও। এতে ঘি বেশি দিন টাটকা থাকবে, স্বাদও পরিবর্তন হবে না। দুধ ঠিক সময়মতো গরম না করলে অনেক সময় ফেটে যায়। দুধের মধ্যে কয়েক ফোঁটা সরিষার তেল দিয়ে দাও। দুধ যখনই গরম করা হোক না কেন, ফাটবে না। ডিম ফ্রিজে রাখার আগে লেবুর রসে ডোবানো পানিতে কিছুক্ষণ রেখে দাও। কাঁচা মাছ ফ্রিজে স্টোর করবে না। মাছ ভালো করে ধুয়ে লেবুর রস মাখিয়ে কিছুক্ষণ রেখে ভেজে নাও। তারপর এয়ারটাইট কনটেইনারে ভরে ফ্রিজে স্টোর করো। মাছ বেশ কিছুদিন ভালো থাকবে।

ফ্রিজে খাবার রাখার সময় ঢাকা দিয়ে রাখো। এতে খাবার নষ্ট হবে না। রান্না করার পর গরম খাবার কখনোই ফ্রিজে রাখবে না। ঠান্ডা হয়ে রুম নেম্পারেচারে এলে তবেই ফ্রিজে রাখবে।

Be the first to comment on "জেনে রাখুন খাবার ভালো রাখতে কিছু প্রয়োজনীয় টিপস"

Leave a Reply