জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে’র একযুগ পূর্তি

সুরাইয়া আমিন,জবি প্রতিনিধি: ‘জাগো সত্যে শুভ্র আলোয় জাগো হে মিলিত প্রাণ’ ¯স্লোগানকে সামনে রেখে অমর একুশের চেতনায় ‘জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের এক যুগপূর্তি উৎসব ও নবীনবরণ-২০১৮ অনুষ্ঠান সোমবার ভাষা শহীদ রফিক ভবন প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, “জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শুরু হতেই সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডের অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক কেন্দ্র।এই দীর্ঘ সময় ধরে তারা সফলভাবেই সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনা করছে অত্যন্ত সফলভাবেই। যেকোন দেশের উন্নয়ন অর্থনৈতিক মাত্রায় ধরা হলেও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড মুখ্য হয়ে থাকে। শুধুমাত্র অর্থনৈতিকভাবে ধনী হলেই দেশের উন্নয়ন দীর্ঘস্থায়ী হবে না। মানুষের মনোজাগতিক পরিবর্তন ঘটে সাংস্কৃতি কর্মকান্ডের মধ্যদিয়ে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় এবং আসম্প্রদায়িক জাতি গঠনে জাতির জনকের সোনার বাংলা গড়তে সংস্কৃতি অন্যতম ধারক এবং বাহক।”

সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সভাপতি ঋত্বিক রায়-এর সভাপতিত্বে, সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলম গাজী-এর সঞ্চালনায় প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন বিশিষ্ট নাট্য ব্যক্তিত্ব রোকেয়া প্রাচী।তিনি বলেন, ‘জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিভাবক ড. মীজানুর রহমানের অভিভাবকত্বে এখানকার সাংস্কৃতিক পরিমন্ডল বিস্তার লাভ করছে খুব দ্রুত গতিতে। এর ধারাবাহিকতা রক্ষার জন্য স্বাধীনতা সংস্কৃতির পক্ষের মানুষদেরকে রাষ্ট্র ক্ষমতায় রাখতে হবে।’বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মোঃ ওহিদুজ্জামান, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক স্ট্যান্ডিং কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মোঃ আবুল হোসেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি মোঃ তরিকুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক শেখ জয়নুল আবেদিন রাসেল। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সদস্যদের অংশগ্রহণে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। এসময় বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভাগের চেয়ারম্যান, শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Be the first to comment on "জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে’র একযুগ পূর্তি"

Leave a Reply