ক্যাস্টর অয়েলের ভিন্ন কিছু ব্যবহার

ক্যাস্টর অয়েল নারীদের কাছে বেশ পরিচিত একটি নাম। অনেকের ধারণা শুধু নতুন চুল গজাতে ক্যাস্টর অয়েল ব্যবহার করা হয়। শুধু চুল গজাতে নয়, ত্বকের আরো নানান সমস্যা দূর করতে পারে ক্যাস্টর অয়েল। ক্যাস্টর অয়েলের ভিন্ন কিছু ব্যবহার নিয়ে আজকের এই ফিচার।

১। বলিরেখা দূর করতে

ত্বকে রিংকেল বা বলিরেখা পড়া রোধ করতে ক্যাস্টর অয়েল বেশ কার্যকর। খুব অল্প পরিমাণ ক্যাস্টর অয়েল হাতে নিয়ে ত্বকে ম্যাসাজ করে মাখুন। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন। তারপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে এটি ত্বকের বলিরেখা পড়া রোধ করবে।

২। আগা ফাটা রোধে

চুলের আগা ফাটা রোধ করতে কয়েক ফোঁটা ক্যাস্টর অয়েল চুলের আগাতে লাগিয়ে কিছুক্ষণ ঘষুন। এটি চুলের আগা ফাটা রোধ করবে।

৩। চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে

চুল বৃদ্ধির জন্য ক্যাস্টর অয়েল সুপরিচিত। এটি নতুন চুল গজানোর পাশাপাশি চুল ঘন করতে সাহায্য করে। সপ্তাহে ২ দিন রাতের বেলা গরম ক্যাস্টর অয়েল মাথার তালুতে ও চুলে ভালো করে ম্যাসাজ করুন। তবে অবশ্যই ক্যাস্টর অয়েল সরাসরি চুলে ব্যবহার করবেন না। এরসাথে নারকেল বা অলিভ অয়েল মিশিয়ে তারপর চুলে ব্যবহার করুন। সকালে চুল শ্যাম্পু করে ফেলুন।

৪। চোখের পাপড়ি এবং আই ভ্রু বৃদ্ধিতে

চোখের পাপড়ি ঘন করতে বা ভ্রু বৃদ্ধিতে ক্যাস্টর অয়েল অনেক কার্যকরী। একটি তুলোর বলে ক্যাস্টর অয়েল লাগিয়ে সেটি চোখের পাপড়ি এবং ভ্রূতে ম্যাসাজ করে লাগান। সারারাত এটি এভাবে রাখুন। পরের দিন সকালে তা ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত করলে চোখের পাপড়ি এবং ভ্রু ঘন হয় যাবে।

৫। হাতের বলিরেখা দূর করতে

নিয়মিত হাতে ক্যাস্টর অয়েল ব্যবহারে হাতে বলিরেখা পড়া রোধ করে। আপনি এটি নাইট ক্রিমের মতো ব্যবহার করতে পারেন। ঘুমাতে যাওয়ার আগে হাতে ক্যাস্টর অয়েল ম্যাসাজ করে নিন। পরের দিন সকালে পেয়ে যান নরম কোমল হাত।

৬। স্ট্রেচ মার্ক দূর করতে

স্ট্রেচ মার্কের উপর ক্যাস্টর অয়েল ম্যাসাজ করে লাগান। কিছু সময়ের পরে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে দাগ দূর হয়ে যাবে।

৭। পা ফাটা রোধ করতে

পা ফাটা রোধ করতে ক্যাস্টার অয়েল বেশ কার্যকর। কিছু পরিমাণ ক্যাস্টর অয়েল পায়ের ফাটা স্থানে ম্যাসাজ করে লাগিয়ে নিন। এভাবে সারারাত থাকুন। পরের দিন পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

Be the first to comment on "ক্যাস্টর অয়েলের ভিন্ন কিছু ব্যবহার"

Leave a Reply