অপারেশনের সময় বাচ্চার মাথা ছিড়ে ফেলল ডাক্তার 

শুক্রবার সুতির মুর্শিদাবাদ বহগালপুরের বাসিন্দা মালতি বিবি (২৫) প্রসব যন্ত্রণা নিয়ে সামসেরগঞ্জের অনুপনগর ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি হন। সেখানেই নরমাল ডেলিভারি-র সময়ে চিকিৎসক অভিজিৎ দাশগুপ্ত গর্ভের সন্তানের মাথা ছিঁড়ে ফেলেন বলে অভিযোগ। অবস্থা বেগতিক দেখে শিশুটির ছিন্নমুণ্ড কাউকে না জানিয়ে ব্যাগে করে দিয়ে রোগীকে জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করে। সেখানে রোগীর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে বহরমপুরে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।

https://www.bdnow24.com/category/আজব-দুনিয়া/page/5/
শনিবার সকালে তার সিজার করে দেখা যায় শিশুটির মাথা নেই। এর পরেই পরিবারের লোকজন হাসপাতালের দেওয়া ব্যাগে শিশুটির বিছিন্ন মুণ্ড দেখতে পান। প্রশ্ন উঠছে, যেখানে সরকারি চিকিৎসা পরিকাঠামোকে ঢেলে সাজানোর কথা বলছেন মুখ্যমন্ত্রী, সেখানে এইরকম একজন চিকিৎসক কীভাবে একটি সরকারি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে কাজ করতে পারেন। প্রশ্ন উঠছে, তাঁর মেডিক্যাল সার্টিফিকেট নিয়েও।

মালতি বিবির স্বামী জাহাঙ্গির শেখ জানান, ‘আমি স্ত্রীকে ভর্তি করে তার মেডিক্যাল যে রিপোর্টগুলো আনতে বাড়ি গিয়েছিলাম। ৩০ মিনিট বাদে যখন এলাম, তখন দেখি আমার স্ত্রীকে ইতিমধ্যেই তাঁরা গাড়িতে তুলে ফেলেছেন। আমাকে একটা ব্যাগ দিয়ে তড়িঘড়ি জঙ্গিপুরে নিয়ে যেতে বলেন। সেখানে পৌঁছলে সেখান থেকে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজে পাঠায়। এখানে এসে সিজারের পরে এখানকার চিকিৎসকরা আমাদের জানান যে, শিশুটির মুণ্ড নেই। তারপর আমি হাসপাতালের দেওয়া ব্যাগে দেখি মুণ্ডটি রয়েছে। আমি চিকিৎসক অভিজিৎ দাসগুপ্তর বিরুদ্ধে সুতি থানায় অভিযোগ জানিয়েছি। চিকিৎসকের কড়া শাস্তি চাই। যাতে অন্য কারোর সাথে এই ঘটনা না ঘটে।’

Be the first to comment on "অপারেশনের সময় বাচ্চার মাথা ছিড়ে ফেলল ডাক্তার "

Leave a Reply